কিভাবে লম্বা হওয়া যায়। কিভাবে দ্রুত লম্বা হওয়া যায়

কিভাবে লম্বা হওয়া যায় এইটি দুশ্চিন্তার কারন নয় । এমনিতেই শরীরের উচ্চতা বাড়বে নিয়মিত শরীর চর্চা করলে। আট ঘন্টা ঘুমাতে হবে প্রতিরাতে শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর জন্য।পর্যাপ্ত পরিমান ঘুমের ফলেও কিন্তু শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি পায়। আরও বেশ কয়েকটি কারন আছে শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর জন্য।

লম্বা হওয়ার প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ন বংশগত একটি বিষয় একথাটি অনেকেই বিশ্বাস করেন।যেকোন পদ্ধতি অনুসরন করে লম্বা হওয়া যায় না।সঠিক জীবন যাপনে অল্প কিছুটাও হলেও শরীরের উচ্চতা বাড়ানো যায়।

  • কে আর না চায় একটু লম্বা হতে। একটু পরিশ্রম করতে হবে তাদের কে যাদের শরীরে খামতি আছে।স্কিপিং , দৌড় , ঝাপ ঘন্টার পর ঘন্টা করেও কোন লাভ হচ্ছে না কিছু কিছু ক্ষেত্রে।আরও কিছু ক্ষেত্রে দেখা গেছে অভিবাভক লম্বা না হলেও সন্তান লম্বা হয়ে থাকে।

  • জিনের প্রভাব রয়েছে মূলত উচ্চতার উপর। আরো হরমোনের প্রভাব রয়েছে উচ্চতা উপর । অনেকের উচ্চতা বেশি হয় এই হরমোনের কারনে ।

  • বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে ১৬ বছর পর মেয়েদের উচ্চতা তেমন ভাবে বাড়ে নি । তবে মেয়েরা যদি খেলাধুলা করতো যেমন ব্যাটমিন্টন , সাতার , টেনিস এবং ব্যায়ামের মধ্যে থাকতো তাহলে ১৮ বছর পর্যন্ত তাদের উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়ে যেতো।

কিভাবে লম্বা হওয়া যায় আরো বিস্তারিত আলোচনা করা হলো:

  • সবার ক্ষেত্রে উচ্চতা ভালো হবে যদি পেশীর গঠন ভালো হয়। সুষম খাদ্যের উপর উচ্চতার দৃষ্টিপাত রয়েছে । তবে গবেষকরা বলে উচ্চতা অনেক খানি নির্ভর করে পুষ্টিকর খাবারের উপর। ১৮ বছরের আগেই থেকেই উচ্চতা বাড়ানোর জন্য চেষ্টা করতে হবে ।

সত্যি কথা বলতে লাইফস্টাইল অনেক গুরুত্বপূর্ন উচ্চতা বাড়ানোর জন্য । সুন্দর শরীর সঠিক উচ্চতা আপনার দেহের ফিটনেস কে বুজায় । লম্বা হওয়া টাও জুরুরি সুন্দর তম শরীর গঠনের জন্য।

উচ্চতা বাড়তে পারে ঠিক মতো শরীরের যত্ন নিলে।অনেক সময় বংশগতও হয়ে থাকে উচ্চতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে ।গ্রোথ প্লেট যদি শরীরে কাজ করা , বন্ধ করে দেয় তাহলে লম্বা হওয়া থেমে যায়।

এই জিনিসটা ১৪-২০ বছর বয়সে বেশি হয়ে থাকে । তাই লম্বা হওয়ার জটিলতা দেখা দেয় শিশু কিশোরীদের উপর।তবে ঠিক মতো শরীর বাড়ে পুষ্টি ও উন্নত জীবন ধারায় ।

নিচে শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর কয়েকটি টিপস দেওয়া হলো:

  • পুষ্টি-খাবার: পুষ্টিকর খাবার গ্রহন করতে হবে শরীর বিকাশর জন্য। বাদাম,দুধ,চর্বিহীন মাংস,শাক-সবজি ইত্যাদি নিয়মিত খেতে হবে।

  • প্লেটের ৫০ ভাগ রাখতে হবে শাক সবজি দিয়ে

  • এছাড়াও শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি পায় যে সকল বাচ্চারা প্রতিদিন ডিম খায় । অতি প্রয়োজনীয় প্রোটিন ও ভিটামিন রয়েছে ডিমে শরীর বৃদ্ধির জন্য।অনেক বাচ্চাদের শারিরীক সমস্যা হতে পারে প্রতিদিন ডিম খেলে । তাই ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহন করা উচিত ।

  • এছাড়াও দুধ জাতীয় খাবারে উচ্চ মাত্রার প্রোটিন , ক্যালসিয়াম রয়েছে যা শরীরে যোগান দেয় তাই যায় এটি একটি উদাহারন কিভাবে লম্বা হওয়া যায়।এছাড়াও কার্বহাইড্রেড ও প্রোটিন যুক্ত খাবার খাওয়া উচিত শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর জন্য

  • পরিমিত-ঘুম: ঘুম হলো স্বাস্থ্য ভালো রাখার অন্যতম মাধ্যম। ঘুমের কোন বিকল্প নেই মানুষের জীবনে । আপনার সারাদিনের ক্লান্তি দূর করবে পর্যাপ্ত পরিমান ঘুম ।

  • ঘুমের মাধ্যমে শরীরের আকার আকৃতি পরিবর্তন হয়ে থাকে। ভালো ঘুমের ফলে দৈহিক উচ্চতাও বৃদ্ধি পেয়ে থাকে।

  • রোদের সময় হাটা: ভিটামিন-ডি পাওয়া যায় হাড়ের বিকাশের জন্য।আমরা সবাই জানি যে শরীরে প্রচুর পরিমান ভিটামিন-ডি পাওয়া যায় রোদে হাটলে। তবে রোদে থাকতে হবে শরীরের রং ভেদে। এর মধ্যে ৩০ মিনিট রোদে থাকতে পারবেন ফর্সা ত্বক লোকের জন্য কিন্তু প্রায় ঘন্টা খানেক লেগে যায় কালো ত্বকের লোকের জন্য

  • শরীরচর্চা: কিভাবে লম্বা হওয়া যায় এটির জানার জন্য আপনাকে অবশ্যই শরীরচর্চা করতে হবে।ব্যায়াম করা হয় বিভিন্ন কারনে । শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর জন্যও ব্যায়াম করা হয়।
    শরীরচর্চার বিকল্প যেমন শরীর ভালো রাখতে , তেমনি শরীরচর্চার বিকল্প নেই শরীরের উচ্চতা বাড়াতে । তাই শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর জন্য শরীরচর্চার প্রয়োজন আছে।

  • দেহভঙ্গি: সঠিক ভাবে বসলে এবং সোজা হয়ে বসলে শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়ে থাকে ।একই কথা প্রযোজ্য চলা ফেরার ক্ষেত্রেও ।তাই মেরুদন্ড সোজা করে বসে থাকতে হবে এবং কুজো হয়ে বসে থাকা যাবে না। সোজা হয়ে হাটা চলা করতে হবে।

  • অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস বাদ দিতে হবে : শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য জীবন থেকে অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে।

  • আত্মবিশ্বাসী হওয়া: মন সতেজ থাকে সব সময় হাসি খুশি থাকলে । আত্মবিশ্বাস রাখুন নিজের প্রতি।কেননা শরীর ও মনের ইতিবাচক ভূমিকা রাখে আত্মবিশ্বাস

কিভাবে দ্রুত লম্বা হওয়া যায়

কিভাবে দ্রুত লম্বা হওয়া যায়
কিভাবে দ্রুত লম্বা হওয়া যায়

সবচেয়ে কর্যকর উপায় হলো লম্বা হওয়ার বৃদ্ধির পদ্ধতি । এ পদ্ধতিতে হরমোন বৃদ্ধি করা হয় ইনজেকশন দ্বারা।

কিন্তু এটি ব্যায় বহুল এবং সম্পূর্ন বেআইনি।ক্যালসিয়াম আপনার হাড় বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে এজন্যই আপনাকে দুধ পান করতে হবে । আকর্ষনীয় চেহারা অধিকারী হতে অতিরিক্ত পেশী আপনাকে আরও সাহায্য করবে ।

সবারই পছন্দ হয়ে থাকে লম্বা ছিপছপে গড়ন। ভালো শারীরীক গঠনের কদর আজকাল খুবই জনপ্রিয়। লম্বা মানুষের চাহিদা বেশিই হয়ে থাকে বিয়ের বিঙ্গাপন থেকে শুরু করে বিমানওয়ালার চাকরি সহ প্রায় সব ক্ষেত্রেই । সুগঠিত ও লম্বা শরীর নিয়ে সবাই জন্ম নেয় না।

কিভাবে লম্বা হওয়া যায় তা নিচে আলোচনা করা হলো :

১. দুধ পান আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করবে কারণ দুধে থাকে ক্যালসিয়াম ও প্রোটিন যা আপনার হাড় বৃদ্ধি সহায়তা করে। হরমোনের মাত্রার বৃদ্ধির জন্য আমেরিকায় গরুর খাদ্যের মধ্যে হরমোন জনিত ইনজেকশন দেওয়া হয় এবং সেই দুধ হবে সাধরণ দুধের বিকল্প ।

২.এছাড়াও হরমোন বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে নিয়মিত ব্যায়াম করলে । হরমোন কে আরও উন্নত করার জন্য বহুল পরিচিতি ও পদ্ধতি কার্যকর। নিয়মিত ব্যায়াম করলে আপনার পেশী শক্ত হবে ও পেশী বৃদ্ধি পাবে। আপনাকে সুন্দর ও আকর্ষনীয় করে তুলবে অতিরিক্ত পেশী । তাই আপনাকে নিয়মিত ব্যায়াম করা উচিত ।

৩.কমপক্ষে আপনার এক দিনে ৮ ঘন্টা ঘুমানো উচিত । এটি সবচেয়ে কার্যকরী ও সহজ উপায় । আপনার দেহের স্বাভাবিক মাত্রা আরোও বাড়িয়ে তুলে সঠিক ও সুন্দর ভাবে ঘুমানোর ফলে । ঘুমের মাধ্যমে শরীরের আকার আকৃতি পরিবর্তন হয়ে থাকে। ভালো ঘুমের ফলে দৈহিক উচ্চতাও বৃদ্ধি পেয়ে থাকে।

৪.তীব্র ব্যায়ামের ফলে মানব দেহে হরমোনের বিকাশ ঘটে। তীব্র ব্যায়াম করলে হরমোনের উন্নত হওয়ার পাশাপাশি আরও দ্রুত কাজ করতে সক্ষম হয় । যে কোন কঠিন ব্যায়াম আপনাকে শরীরীক ভাবে লম্বা করতে সাহায্য করবে । তবে অবশ্যই সেটা ২১ বছর বয়সের পর করতে হবে ।

৫.মানসিক চাপ হচ্ছে আপনার উচ্চতা বৃদ্ধি পাওয়ার মাঝে বাধা । মানসিক চাপ থাকলে আপনার হরমোনের মাত্রা কমে যায় এবং করটিসল উৎপন্ন হয়। তাই আপনাকে মানসিক চাপ কমাতে হবে।

৬. সাঁতার কাটতে হবে ‍আপনাকে । সাঁতার কাটা হলো অপনার উচ্চতা বাড়ানোর আরেক টি উপায় । আপনি কিছু টা হলেও আশা করতে পারেন যদি আপনি প্রতিদিন সাঁতার কাটতে পারেন। সাঁতার আপনাকে কোমরের ব্যাথা জয়েন্টের ব্যাথা থেকে মুক্তি দিতে পারে ।

কিভাবে ব্যায়াম করলে লম্বা হওয়া যায়

শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য আপনাকে অবশ্যই ব্যায়াম করতে হবে । যারা নিজেদের শরীরের উচ্চতা বাড়িয়েছেন তারা অব্শ্যই ব্যায়াম করেছেন । এখন আপনাদেরকে জানাবো কিভাবে লম্বা হওয়া যায়।

আপনি যদি ব্যায়াম করেন তাহলে অপনার শরীরে হরমোন উৎপন্ন হবে । এই হরমোন আপনার দেহের বৃদ্ধি করতে সাহায্য করবে । এ জন্য আপনাকে নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে । ব্যায়াম করলে অপনার মন ও শরীর দুটোই ভালো থাকবে। নিয়মিত ব্যায়াম করলে আপনার পেশী শক্ত হবে ও বৃদ্ধি পাবে । প্রতিদিন আপনা কে ১-২ ঘন্টা ব্যয়াম করা উচিত ।

আপনি যদি খেলা ধুলা পছন্দ করেন তাহলে আরো ভালো হয় । আপনি বিভিন্ন ধরনের ব্যায়াম করতে পারেন যেমন : পুশ আপ , সিট আপ, সাতার , ইত্যাদি । নিচে এই ব্যায়াম গুলো নিয়ে আলোচনা করবো

১. পুশ-আপ : পুশ আপ হলো অতি পরিচিত একটি ব্যায়াম । এটি একটি সরঞ্জাম বিহীন ব্যায়াম । এই ব্যায়াম করার সময় পজিশন থাকতে হবে উপুর হয়ে । এই ব্যায়াম করলে হাতের পেশী গুলো ওঠা নামা করে । এই ব্যায়াম টি করলে অপনার শরীরে হরমোন সৃষ্টি হবে । এ হরমোন আপনার দেহের উচ্চতা বৃদ্ধি করতে সহায়তা করবে ।


২.সিট আপ: সিট আপ এই ব্যায়াম টি আপনি করলে ‍আপনার পেটের পেশী শক্তি শালী হবে । এই ব্যায়াম টি করলে আপনার শরীরে প্রচুর পরিমানে হরমোন উৎপাদন হবে । যা আপনার শরীরের উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করবে ।

.সাতার: শরীরের খারাপ কোলেস্টেরল কমিয়ে দিয়ে ভালো কোরেস্টেরল বাড়িয়ে দেয় তাই কিভাবে লম্বা হওয়া যায় তা জানতে চাইলে আপনাকে সাতার কাটতে হবে । অনেকেই সুস্থ থাকার জন্য প্রতিদিন সাতার কাটেন । শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য সাতার একটি গুরুত্ব পূর্ন ভূমিকা পালন করে ।

  • সাতার হলো সব ব্যায়াম এর থেকে খুব ভালো একটি ব্যায়াম । সাতার কাটলে কোমরের ব্যাথা , বাতের ব্যাথা , জয়েন্টের ব্যাথা সব দূর হয়ে যায় ।

  • সাতার কাটার খুব ভালো গুন রয়েছে । সুস্থ থাকতে হলে সাতারের কোন বিকল্প নেই । সাতার কেটে আপনি নিজের শরীরের উচ্চতা বাড়াতে পারবেন।

  • কাটা হলো অপনার উচ্চতা বাড়ানোর আরেক টি উপায় । আপনি কিছু টা হলেও আশা করতে পারেন যদি আপনি প্রতিদিন সাঁতার কাটতে পারেন।

এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের ব্যায়াম আছে যেগুলো আপনাকে শরীর বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে । শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর জন্য আপনাকে অবশ্যই ব্যায়াম করতে হবে কিন্তু এতো বেশি ব্যায়াম করবেন না যাতে আপনি ব্যাথা পান ।
আপনাকে একটু পরিশ্রম করতেই হবে যদি শরীরের উচ্চতা বাড়াতে চান ।

কিভাবে ঘুমালে লম্বা হওয়া যায়

কিভাবে লম্বা হওয়া যায় এর উত্তর হলো : ২০ বছরের কম বয়সের লোকেদের ৮ থেকে ৯ ঘন্টা ঘুমানো উচিত যদি তারা নিজেদের শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি করতে চায়লে ।

শরীরে হরমোন তৈরি হয় এবং লম্বা হতে সময় পায় পরিমান মতো ঘুমালে । তাই এক টাইমে নিয়মিত ঘুমানোর অভ্যাস করুন। পিটুইটারি গ্লাড থেকে গ্রোথ হরমোন বারাতে সাহায্য করে গভীর ভাবে ঘুমালে।

আপনি যদি নিজের শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি করতে চান তাহলে প্রতিদিনের অন্যান্য কাজের পাশাপাশি নিয়ম করে ঘুমাতে হবে। হাড়, মাংসপেশী ক্লান্ত হয়ে যায় সারাদিনের পরিশ্রমের ফলে। শরীর ভেঙে পড়ে তখন বিশ্রামের দরকার হয় । পর্যাপ্ত পরিমান বিশ্রাম দরকার আবার নতুন করে কাজ শুরু করার জন্য ।

সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে যেন পরিমান মতো ঘুম হয় ।হাড় ও মাংসপেশী বিশ্রাম ঠিক মতো হবে যদি ঘুম ঠিক মতো হয় । বয়স অনুযায়ী ঘুমের মাত্রা ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে।

কিভাবে ঘুমালে লম্বা হওয়া যায় , নিচে ঘুমের তালিকা দেওয়া হলো:

  • ১৮ ঘন্টা ঘুমাতে হবে নবজাতক শিশুর জন্য ।

  • ১৩-২২ ঘন্টা ঘুমাতে হবে ২ থেকে ৪ বছর বয়সী বাচ্চাদের ।

  • ১১-১৩ ঘন্টা ঘুমাতে হবে ৩ থেকে ৫ বছর বয়সী বাচ্চাদের ।

  • ৯-১০ ঘন্টা ঘুমাতে হবে ৬ থেকে ৭ বছর বয়সী বাচ্চাদের ।

  • ৮-৯ ঘন্টা ঘুমাতে হবে ৮থেকে ১৪ বছর বয়সী কিশোর কিশোরীদের ।

  • ৮ ঘন্টা ঘুমাতে হবে ১৮ বছর বা প্রাপ্ত বয়ষ্ক লোকেদের ।

ঘুমের মাধ্যমে শরীরের আকার আকৃতি পরিবর্তন হয়ে থাকে। ভালো ঘুমের ফলে দৈহিক উচ্চতাও বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। আপনার শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি পেয়ে থাকে রাতে ভালো ঘুমের ফলে । ঘুম শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধির পাশাপাশি শরীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়ায় ।

Leave a Comment